» “১৪ আইনজীবী ও অনলাইন কোর্ট  “

প্রকাশিত: ২৫. এপ্রিল. ২০২০ | শনিবার

অনলাইন বা ই- কোর্ট  চেয়ে আবেদনকারীদের বিরুদ্ধে একটা গ্রুপ অনেক সোচ্চার অনেক বাজে মন্তব্য করতেও ছাড়েননি । সারা বিশ্বে কি অনলাইন কোর্ট নাই!! বাংলাদেশে কি কোন দিন হবে না ??!! তাহলে এখন হলে দোষ কি??? ও আমরা অনলাইনে মামলা করে সব টাকা কামিয়ে নিব তাই!!!

কিন্তু আপনারা তো সারা বছর কামিয়েছেন , বড় বড় সিনিয়র দিয়ে, বড় বড় চেম্বার থেকে কারন আপনারা বেশ উপরতলার , আইনঅঙ্গনে আপনাদের ব্যাপক পরিচিতি সেই সুবাদে ব্যাংক, কোম্পানি সরকারি বেসরকারি সব জায়গা এবং  বাঘা বাঘা মোয়াক্কেলের মামলা করে গাড়ি, বাড়ি, যশ , খ্যাতি অনেকের উপচেও পরছে।
কিন্তু আমরা তো ২/১  মামলা করে কোন রকমে বেঁচে থাকার মতো অবস্থা এক মাস বন্ধ থাকলেই সব বন্ধ কারন আমাদের  কোন ব্যাংক, কোম্পানী বা কোন দপ্তর থেকে মাসে মাসে টাকা চলে আসে না। তাই অনলাইনে কোর্ট চালু হলে বাসায় থেকে কোর্টের কাজ হলে দোষের কোথায়?? এখানেও তো সেই আপনারাই অগ্রগণ্য হবেন , না ই বা হলেন – তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম আমরাই হবো,  তাহলে আপনাদের সমস্যা কোথায়!??

জীবনে কোনোদিন দেখিনি কোন স্বনামধন্য আইনজীবীকে বলতে যে  আমি তো ৫/১০/১৫/২০ জায়গায় আছি বা আমার এতো মামলা আছে তোমরা আসো এই মামলাটা করো বা এই জায়গায় আইনজীবী হিসেবে থাকো বরং উল্টো দেখেছি অনেক জায়গায়।

এ পেশাটা কি আসলেই এমন!!! আর এমন যদি হয় তাহলে সমাজে প্রথম শ্রেণী বা উচ্চ সন্মান আশা করা নিছক হাস্যকর ছাড়া কিছুই নয় ।

দুঃখজনক, ফেসবুক    ইউটিউব ইমেইল ম্যাসেঞ্জার   সবই চালাতে পারে কিন্তু অনলাইন বুজে না !! হায় সেলুকাস । আমরা বার বার বলছি যে অনলাইন ভিত্তিক চালু করার আবেদন করেছি যা বাসা থেকে করা সম্ভব তাও তারা মেনে নিতে পারছেনা। আসলে সমস্যা টা ওখানে না সমস্যাটা হলো – ওরা কারা ?? আর সব টাকা তো ওরাই কামিয়ে নিবে!!!

আর দোষটা উনাদেরও না , দোষটা এই যুগের । এই যুগটাই তেল আর চামচামির যুগ,  পরশ্রীকাতরতার যূগ, জ্বী হুজুর   জ্বী হুজুরের যুগ- না হলে শোয়ায় দিবে, হয়তো  আমাদেরও কারন কেন আমরা উপরতলার খবর না নিয়ে নিচতলার লোকেরা এ কাজ করে বসলাম।

আরে ভাই  !! আমরা আবেদন করেছি আপনারাও করুন না !!! না সেটা করবেন কেন !! তাহলে আমাদের খুঁজবে কে???!!।

এসব বাদ দিয়ে আসুননা সবাই ই-কোর্ট বা অনলাইন ভিত্তিক কোর্ট  চালু করার জন্য কাজ করি , আমরা ইনশাল্লাহ ই-কোর্ট বা অনলাইন ভিত্তিক কোর্ট চালু করার জন্য কাজ করে যাব। কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারের ডিজিটাল সুবিধা থাকা সত্বেও কেন আমরা এই ক্রান্তিকালে ডিজিটাল  সুবিধা  নিব না। ডাক্তার যদি রোগী দেখতে পারে অনলাইনে তাহলে আমরা মামলা সাবমিট করতে পারব না কেন!!??

অবশ্যই পারবো। শুধু সহযোগিতা আর সদিচ্ছা দরকার । আমরা ই-কোর্ট বা অনলাইন ভিত্তিক কোর্ট চাই যা বাসায় থেকেই করা সম্ভব ।

মাফ করবেন বাস্তবতার প্রেক্ষিতে অনেক কথা বলে ফেললাম । ধন্যবাদ সবাইকে ।

লেখক : এনামুল হক এনাম, আইনজীবী, সুপ্রিম কোর্ট