এই মাত্র পাওয়া:

» স্বামীকে বশে আনতে সোয়া ৭৪ লাখ টাকা জোতিষীকে দিলেন স্ত্রী!

প্রকাশিত: ১৩. নভেম্বর. ২০২২ | রবিবার

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।। প্রিয় মানুষকে বশে আনতে বা সংসারে ‍সুখ আনতে কবিরাজ কিংবা তান্ত্রিকের দ্বারস্থ হন অনেক নারী-পুরুষ। এসব ঘটনা ফাঁস হলে সাক্ষী হন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তবে এবার ভারতের মুম্বাইয়ের আন্ধেরিতে ভয়াবহ জোতিষী কাণ্ডে অবাক হয়েছেন সবাই।

দ্য ইন্ডিয়ার এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়, স্বামীর ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে এক জ্যোতিষীকে অর্থ ও স্বর্ণালংকার মিলে প্রায় ৫৯ লাখ রুপি (বাংলাদেশি টাকায় ৭৪ লাখ ৩৪ হাজার টাকা) দেন আন্ধেরির এক নারী। সম্প্রতি ঐ জ্যোতিষীকে আটক করেছে মুম্বাইয়ের পোয়াই থানার পুলিশ।

পুলিশ জানায়, দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে আন্ধেরিতে বাস করতেন ৩৯ বছর বয়সী এক ব্যবসায়ী। সংসারে নিত্যদিনই অশান্তি লেগে থাকতো। দাম্পত্য কলহের জেরে ঐ নারী প্রাক্তন প্রেমিক পরেশ গাডার সঙ্গে পুনরায় যোগাযোগ শুরু করেন।

পরেশ গাডার সঙ্গে ১৩ বছর ধরে স্ত্রীর সম্পর্ক ও পুনরায় যোগাযোগের কথা জানতে পেরে যান ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী। এরপরই বিবাহ বিচ্ছেদের হুমকি দেন তিনি। ভয় পেয়ে প্রেমিকের সঙ্গে সবধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেবেন বলে কথা দেন ঐ নারী।

এরইমধ্যে স্ত্রীকে না জানিয়ে দীপাবলি উপলক্ষে নিজের কোম্পানির কর্মচারীদের বোনাস বাবদ ৩৫ লাখ রুপি নিজের ঘরের আলমারিতে রাখেন ব্যবসায়ী। এক সপ্তাহ পর আলমারিতে রাখা টাকা খুঁজে না পেয়ে স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তিনি। স্ত্রীর উত্তরে অসঙ্গতি দেখে, বড় ভাইকে ডেকে আনেন ঐ ব্যবসায়ী।

দুই ভাইয়ের ক্রমাগত জিজ্ঞাসাবাদের মুখে জ্যোতিষীকে টাকা দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন ঐ নারী। তিনি জানান, প্রতিদিনের দাম্পত্য কলহ থেকে মুক্তি পেতে ও স্বামীকে বশে আনতে তান্ত্রিকের খোঁজ করেন তিনি। একপর্যায়ে ইনস্টগ্রামের মাধ্যমে কথা হয় বাদল শর্মা নামের এক জ্যোতিষীর সঙ্গে। তাকে তিনি নগদ ৩৫ লাখ রুপি ও ২৪ লাখ রুপির গয়না দেন।

ঐ নারী আরো জানান, পরেশ গাডার মাধ্যমে বাদল শর্মার কাছে পৌঁছান তিনি। কালো জাদুর সাহায্যে সব সমস্যার সমাধান করে দেবেন বলে আশ্বাস দেন বাদল। কিন্তু তার বিনিময়ে ঐ নারীকে প্রচুর টাকা খরচ করতে হবে বলে জানান জ্যোতিষী। জ্যোতিষীর কথা মতোই স্বামীকে না জানিয়েই বাড়িতে রাখা নিজের সব স্বর্ণালংকার ও স্বামীর টাকা জ্যোতিষীকে দিতে থাকেন।

বিস্তারিত শোনার পর শুক্রবার পুলিশের কাছে অভিযোগ দেন ঐ ব্যবসায়ী। অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। একপর্যায়ে জ্যোতিষী বাদল শর্মা ও ঐ নারীর প্রেমিককে আটক করা হয়। পরে জোতিষীর আস্তানায় তল্লাশি চালিয়ে সব টাকা ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়।