» সাপাহারে মাতৃভাষা দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনকে কেন্দ্র করে শিক্ষক লাঞ্চিত

প্রকাশিত: ২২. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | শনিবার

 

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন ও শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করা নিয়ে দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, ২১ শে ফেব্রæয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উপলক্ষে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করাকে কেন্দ্র করে উপজেলার আইহাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও রসুলপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার সহ সহকারী শিক্ষকদের শারিরিক ভাবে লাঞ্চিত করেছে ৪নং আইহাই ইউনিয়ন আ’লীগের প্রাক্তন সভাপতি ও ইউপি চেয়রম্যান হামিদুর রহমানের কতিপয় সমর্থকগন ।
আইহাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস ছালেক জানান, বিগত অনেক বছর ধরে আশড়ন্দ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস সহ জাতীয় দিবসগুলোতে পুস্পস্তবক অর্পন ও শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করে আসছিলো এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এরই ধারাবাহিকতায় ২১ শে ফেব্রæয়ারী শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে প্রতিবছরের ন্যায় প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আশড়ন্দ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করার জন্য রওনা হলে পথিমধ্যে মধুইল নামক স্থানে হামিদুর চেয়ারম্যানের কতিপয় সমর্থকগনেরা গাড়ীর পথরোধ করে দাঁড়ায় এবং মধুইল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করতে হবে বলে জোর জবরদস্তি চালায়। এসময় নিয়মানুযায়ী ওই প্রধান শিক্ষক কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করতে চাইলে বাকবিতÐার একপর্যায়ে ওই সমর্থকরা চড়াও হয়ে প্রধান শিক্ষক সহ সহকারী শিক্ষকদের ধাক্কা-ধাক্কি সহ শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করে।
অপর দিকে রসুলপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার তার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একই স্থানে পুস্পস্তবক অর্পন করতে আসার সময় একই স্থানে একই ভাবে তাকেও লাঞ্চিত করে ওই বাহিনী।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, হামিদুর রহমান দির্ঘদিন আইহাই ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতিত্ব করেছিলেন। চলতি সম্মেলনে দলীয় কোন পদ না পাওয়ার ফলে এই ধরণের মনগড়া বিধান তৈরী করে এলাকায় দলীয়ভাবে বিভাজনের সৃষ্টি করছেন । এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে সাপাহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কল্যাণ চৌধুরীর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বিষয়টি জানেননা বলে এ প্রতিনিধিকে জানান।
এ ব্যাপারে আইহাই ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুর রহমানের সাথে তার ব্যবহারকৃত ০১৭১৩৮১৫৩৮২ এই নম্বরে ৩.৩১ টা থেকে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।