এই মাত্র পাওয়া:

» সাতক্ষীরা তালা থানায় গ্রেফতার মনিরুল সরদারের উপযুক্ত শাস্তি চায় এলাকাবাসী

প্রকাশিত: ১৪. অক্টোবর. ২০২২ | শুক্রবার

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।
সাতক্ষীরা তালা মাগুরা ইউনিয়নের বালিয়াদাহা গ্রামের আফসার সরদারের ছেলে মনিরুল সরদার মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী ও সন্ত্রাসী তীরাশ সৃষ্টি করছে এবং স্থানীয় মা-বোনদের ইজ্জত হরণের চেষ্টা এমন অভিযোগ উঠে এসেছে।
সাংবাদিকদের স্থানীয় জনগণ জানান, আফসার সরদারের ছেলে মনিরুল সরদার একজন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী,গাজা ফেনসিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন নেশা দ্রব্যের সাথে সে জড়িত। বিভিন্ন রকম নেশা করে সে রাতে স্থানীয় বিভিন্ন মানুষের বাড়ি ঘরে ওঠে মা বোনদের ইজ্জত হরণের চেষ্টা করে, বালিয়াদাহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি,মোঃ আব্দুল করিম সরদার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আফসার সরদার এর ছেলে মনিরুল সরদার একজন সন্ত্রাস ও এলাকায় তিরাশ সৃষ্টিকারী মাদক সেবন করে এসে রাতে বিভিন্ন মানুষের বাড়ি ঘরে ওঠে মা-বোনদের ইজ্জত হারানোর চেষ্টা করে ও কিছু বললে ছুরি দেখিয়ে ভয় দেখায় জানে মেরে ফেলার, মনিরুল সরদার বহু মামলার আসামি, কিন্তু তার উপযুক্ত কোন বিচার পাননি এলাকাবাসী।মনিরুল সরদারের উপযুক্ত শাস্তি চাই বলে জানান।
মোঃ মাওলানা শাহিনুর রহমান জানান, স্থানীয় এলাকাবাসীর মনিরুল সরদার গভীর রাতে বাড়ির গোয়াল ঘরের রান্না ঘরের দরজার তালা ঝাঁকি দিয়ে শব্দ করে যাতে করে মহিলারা বাইরে আসলে ছুরি দেখিয়ে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেখিয়ে খামচে ধরে ও ইজ্জত হরণের চেষ্টা করে চিল্লালে মানুষ আসার আগে ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায় হাতেনাতে কোনদিন ধরতে পারি না, এমনকি আমার বাসায় কয়েকদিন এসে এ সমস্ত কর্মকাণ্ড করেছে আমি বিষয়টি বুঝতে পেরে একটি সিসি ক্যামেরা লাগায় আমার বাড়ির পিছনের জানলার সামনে। আনুমানিক রাত দুইটার দিকে মনিরুল সরদার আমার বাড়ির পিছনের জানালায় হাজির হয় ও হাতে থাকা পাটকাঠি দিয়ে আমার স্ত্রীর গায়ে হাতাতে থাকে আমি প্রায় তিনটার দিকে ঘুম থেকে জাগ্রত হই এবং বাইরে আসি বাইরে আসার শব্দ পেয়ে ও পালিয়ে যায় পরের দিন সকালে এ ভিডিও ফুটেজ আমি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের দেখায় স্থানীয় জনগণ ওকে ধরে আনুমানিক রাত ৯ টার দিকে পুলিশের হাতে হস্তান্তর করে। আরো জানান, মনিরুল সরদার বহু মামলার আসামি কিন্তু গ্রেফতার হওয়ার দুই তিন দিন পর আবার জামিনে বাইরে আসে এবং পুনরায় এসব কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়। এলাকাবাসী আজ পর্যন্ত কোন সুস্থ প্রতিকার পায়নি।আমরা এলাকাবাসী ওর এসব কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ যে কোন মুহূর্তে ও যে কোন কিছু ঘটাতে পারে এজন্য পুলিশের এবং আদালতের কাছে আমার অকূল আবেদন মনিরুল সরদার জনো তার কর্মকাণ্ডের উপযুক্ত শাস্তি পায় বলে জানান, শওকত হোসেনের স্ত্রী জেসমিন বেগম জানায়, আমার স্বামী শওকত হোসেন প্রবাসী প্রিরায়১২ বছর বিদেশে থাকে । আমি ও আমার সাবালিকা দুটো মেয়ে নিয়ে গ্রামে থাকি, এমতাবস্থায় আমার বাসায় ঢুকে আমার পার্সে থাকা আশি হাজার টাকা ও একটি স্মার্টফোন নিয়ে চুরি করে নিয়ে যায় ওই রাতে আমরা চিল্লাচিল্লি করলে সে পালিয়ে যায় অন্ধকার থাকায় আমি চিনতে পারিনি তবে ধারণা করছি মনিরুল সরদার এই কাজ করেছে। স্থানীয় আরো মহিলা মা-বোনেরা বলেন তার জন্য এলাকার কোন যুবতী মেয়ে বা মহিলা রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারে না উত্তপ্ত সহ বিভিন্ন রকম নোংরা কথা বলে বেড়ায়, আমরা এই মনিরুল সরদারের উপযুক্ত শাস্তি চাই।
স্থানীয় জনগণ আরো জানান কাল রাতে মনিরুল সরদারকে ধরে
পুলিশে হেফাজতে দেওয়া হয়েছে কিন্তু তার আতঙ্কের ভয়ের কারণে কেউ অভিযোগ দায়ের করতে সাহস পায়নি।
এ বিষয়ে তালা থানার এস আই মনিরুজ্জামান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নতুন করে কোন অভিযোগ তার উপর কেউ দায়ের করি নাই মনিরুলের বিগত মামলার অরেন্ট ছিল এজন্য তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং কোর্টে চালান করা হয়েছে।