এই মাত্র পাওয়া:

» সাঁথিয়ায় ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগে বিএনপি’র নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ২৩. নভেম্বর. ২০২২ | বুধবার

 

সাঁথিয়া(পাবনা) সংবাদদাতা -ঃ
পাবনার সাঁথিয়ায় ককটেল বিস্ফোরনের অভিযোগে বিএনপির নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ সময় আ’লীগের ৪ জন কর্মী আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের হাঁপানিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্ফোরিত ককটেলের অংশগুলো উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ধোপাদহ ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মনসুর আলম বাদী হয়ে ৬জন নামীয় ৬০ / ৭০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে সাঁথিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা সং-২৫, তারিখ-২২-১১-২০২২ইং ।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধোপাদহ ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড আ’লীগের এক কর্মীসভা চলছিল। রাত আটটার দিকে ধোপাদহ ইউনিয়ন আলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুজ্জামান বাবুল বক্তব্য দিচ্ছিল এমতাবস্থায় সভাস্থলে ৩টি ককটেল বিস্ফোরণ ও চেয়ার ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক সাঁথিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তবে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ৪ জন আহত হয়েছে।আহতরা হলো- আবু সাঈদ (৪৫), এনামুল (৩৩), সেলিম রেজা (৩৬), সুমন বাপ্পি (২০)। তারা সাঁথিয়া হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়।

ধোপাদহ ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি সাইদুজ্জামান বলেন, রাত আটটার দিকে মঞ্চে বক্তব্য চলছিল। এ সময় এলাকার চিহ্নিত বিএনপি সন্ত্রাসীরা অতর্কিতভাবে সভাস্থলে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় ও চেয়ার ভাংচুর করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ১০ ডিসেম্বর বিএনপি’র সমাবেশকে ঘিরে এলাকায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতি ও জনমনে আতংক সৃষ্টির জন্য তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

সাঁথিয়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কে,এম মাহবুব মোর্শেদ জ্যোতি বলেন, ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীর বিভাগীয় সমাবেশ এবং ১০ ডিসেম্বর ঢাকারমহাসমাবেশ বানচালের উদ্দেশ্যে এ এলাকায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতি ও জনমনে আতংক সৃষ্টির জন্য এ হীন ঘটনা ঘটিয়ে বিএনপির উপর দায় চাপানো হচ্ছে। আমাদের নেতা কর্মীরা যাতেকরে সমাবেশে না উপস্থিত হতে পারে তার জন্য এ মামলা।

সাঁথিয়া থানার ওসি তদন্ত কমল কুমার দেব নাথ জানান, এ ঘটনায় ৬জন নামীয় ও ৬০/৭০ জন অজ্ঞাত আসামী করে মামলা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত রয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।