»  সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিমকোর্টে যাচ্ছে কেরালা

প্রকাশিত: ১৪. জানুয়ারি. ২০২০ | মঙ্গলবার

জাতির সংবাদ ডেস্ক ।। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিমকোর্টে যাচ্ছে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্য কেরালা।

আজ মঙ্গলবার কেরালার রাজ্য সরকারের বরাত দিয়ে এ সংবাদ জানায় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

এর মধ্য দিয়ে ডিসেম্বরে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ভারতীয় সংসদে অনুমোদনের পর প্রথম কোনো রাজ্য এ আইনকে চ্যালেঞ্জ করে ভারতীয় সুপ্রিমকোর্টে পিটিশন দাখিল করেছে।

অবশ্য এর আগেই সুপ্রিমকোর্টে এ আইনকে চ্যালেঞ্জ করে ৬০টির বেশি পিটিশন দাখিল করা হয়।

কেরালার বাম শাসিত রাজ্য সরকার তাদের পিটিশনে জানায়, সংশোধিত নাগরিক আইন ভারতীয় সংবিধানের বিভিন্ন ধারার লঙ্ঘন এবং একইসঙ্গে সংবিধানের ভিত্তি ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’ মৌলিক নীতির বিরোধী।

এ রাজ্যে গ্রিক, রোমান, আরবি, খ্রিস্টান, মুসলিম– সব সম্প্রদায়ের মানুষ একত্রে বাস করছেন। এটি আমাদের ঐতিহ্য। এই ঐতিহ্যকে কখনই নষ্ট হতে দেব না।

সিএএ প্রয়োগ করে নাগরিকদের মৌলিক অধিকার খর্ব করার চেষ্টা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছেন বিজয়ন।

তিনি বলেন, সংসদের দুই কক্ষে সিএএ পাস হওয়ার পর থেকেই দেশের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে একটা আশঙ্কার পরিবেশ তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে কেরালায়ও এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চলছে।

সিএএ নিয়ে দেশজোড়া প্রতিবাদ ও আন্দোলন চলছে বেশ কয়েক দিন ধরেই। এই আইন বাতিলের দাবিতে হাজার হাজার মানুষ পথে নেমেছেন।

মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, আরএসএসের নীতি মেনে এই আইন পাস করিয়ে ধর্মীয় বিভাজনের চেষ্টা করছে বিজেপি। বিধানসভায় সিএএ বাতিলের প্রস্তাবও পাস করিয়ে নেন বিজয়ন।

কেরালার রাজ্যপাল সরকার এ প্রসঙ্গে বলেছিলেন, রাজ্য সরকারের এ ধরনের পদক্ষেপের কোনো আইনি বৈধতা নেই। কারণ এই আইন সম্পূর্ণ কেন্দ্রের বিষয়।

পাশাপাশি পিটিশনে কেরালার সরকার ২০১৫ সালের আগে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে আসা অমুসলিম অভিবাসীদের ভারতে অবস্থানের বিষয়ে শিথিলতার বিষয়ে চ্যালেঞ্জ করছে।

গত ১২ ডিসেম্বর ভারতীয় লোকসভায় সদস্যদের অনুমোদনের পর আইনে পরিণত হয় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন। এ আইন অনুয়ায়ী, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়া হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈনসহ অমুসলিম অভিবাসীরা ভারতের নাগরিকত্ব পাওয়ার সুযোগ আছে।