এই মাত্র পাওয়া:

» সংক্রমণের মাত্র ৩ দিনেই অকার্যকর করে দেয় ঘ্রাণশক্তি! এতটা ভয়ঙ্কর করোনা

প্রকাশিত: ০৯. মে. ২০২০ | শনিবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জাতির  সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।    

করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব। বিশ্বব্যাপী প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা।

মাত্র চার মাসের বিশ্বব্যাপী এই ভাইরাসের বিষাক্ত ছোবলে আক্রান্ত হয়েছে (শনিবার সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত) ৪০ লাখ ১২ হাজার ৮৩৭ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭৬ হাজার ২১৬ জনের।

কিছুতেই লাগাম টানা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমণের। এই মারণ ভাইরাসে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। প্রতিদিন এর ধ্বংসযজ্ঞের শিকার হচ্ছেন বিশ্বের ২১২টি দেশ ও অঞ্চলে মানুষ।

এমতাবস্থায় এবার নতুন নতুন লক্ষণও দেখা যাচ্ছে করোনা আক্রান্তদের। এমনকি বিভিন্ন দেশে অনেক রোগীরই কোনও উপসর্গ ছাড়াই করোনা সংক্রমণ দেখা দিচ্ছে।
নতুন এক গবেষণা বলছে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের বেশির ভাগই সংক্রমণের তিন দিনের মাথাতেই ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলছেন। অস্ট্রেলিয়ায় করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে অনেকেরই এ রকম অভিজ্ঞতা হচ্ছে।

জার্মানিতেও সিংহভাগ করোনা আক্রান্ত রোগী অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেওয়ার তিন দিনের মাথায় ঘ্রাণ শক্তি হারিয়ে ফেলেছেন বলে গবেষকরা জানাচ্ছেন।

একইসাথে সংক্রমণের শুরুতেই অনেকেই স্বাদ ও গন্ধের অনুভূতি দুই হারিয়েছেন। চীন, ইরান, ইতালি, জার্মানি এবং ফ্রান্সের মতো করোনা কবলিত দেশে অনেক করোনা আক্রান্তেরই খোঁজ পাওয়া গেছে যারা স্বাদ নেওয়ার ক্ষমতা ও ঘ্রাণশক্তি উভয়ই হারিয়েছেন।

সম্প্রতি এই বিষয়ে একটি টেলিফোনিক গবেষণা ওথেরিনোলারিঙ্গোলজি- হেড এবং নেক সার্জারি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

ছয় সপ্তাহ ধরে করোনা আক্রান্ত প্রায় ১০৩ জন রোগীর ওপর এই সমীক্ষা চালানো হয়। এই সমীক্ষায় মূলত সুইজারল্যান্ড, আরাউর করোনা আক্রান্ত রোগীরা তাদের প্রাথমিক উপসর্গের কথা তুলে ধরেন। কোন সময়ে তারা তাদের ঘ্রাণশক্তি পুরোপুরি হারিয়ে ফেলেন তাও জানান গবেষকদের।

এই জরিপে অংশগ্রহণকারী ৬১ শতাংশ করোনা রোগী জানিয়েছেন অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেওয়ার তিন থেকে সাড়ে তিন দিনের মাথাতেই তারা সম্পূর্ণভাবে ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলেন।

এদিকে ব্রিটিশ অ্যাসোসিয়েশন অব ওথেরিনোলারিঙ্গোলজিও করোনা সংক্রমণের সঙ্গে ঘ্রাণ ও স্বাদ হারিয়ে ফেলার বিষয়টির সঙ্গ এক মত প্রকাশ করেছে। সূত্র: মেডিকেল এক্সপ্রেস, দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৯ বার

[hupso]
Facebook Pagelike Widget