» শার্শায় অবৈধ ইটভাটাগুলোয় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান এক লক্ষ চৌরাশি হাজার টাকা অর্থদণ্ড

প্রকাশিত: ১৩. ফেব্রুয়ারি. ২০২০ | বৃহস্পতিবার

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোরের শার্শায় অবৈধ ইটভাটাগুলোয় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা’য় এক লক্ষ চৌরাশি হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং তারিখে শার্শার উলাশী ইউনিয়নের রামপুর  ও বাগঁআচড়া ইউনিয়নের জামঁতলা রোডে অবস্থিয় কয়েকটি ইটভাটা ও সরু রাস্তায় গণ উপদ্রব সৃষ্টিকারী দ্রুতগামী কয়েকটি ট্র‍্যাকের উপর মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন, শার্শা উপজেলা ( ভূমি) কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খোরশেদ আলম চৌধুরী।

 


সাংবাদিকদের তিনি জানান, সম্প্রতি জানা যায় যে, শার্শা উপজেলা  থেকে জামঁতলা বাজার পর্যন্ত চলমান রাস্তাটি উপর দিয়ে বিভিন্ন ইট ও বালি বহনকারী গাড়িগুলো বেপরোয়াভাবে চলে, ফলে প্রায়শই দুর্ঘটনা ঘটে। ইটভাটা ও ট্রাকচালককে বৈধ কাগজপত্র দেখাতে বললে, দেখাতে ব্যর্থ হয়।

তাদেরকে দণ্ডবিধি ১৮৬০ এবং ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ অনুযায়ী, ট্রাক চালক শাহিন, পিং- নুরুল ইসলাম, মাগুরাকে ৫০০টাকা, রাজু বিশ্বাস, পিং- আমিনুর রহমান, টেংরাকে ২০০০টাকা, শাহাজান কবীর, পিং-আ. ওয়াদুদ, পানবুড়িকে ১০০০টাকা, টাটা ব্রিকস, মিজানুর রহমান, পিং-আব্বাস মোড়ল, বড়বাড়ীয়াকে ৫০,০০০টাকা, এ কে ব্রিকস, মো. আকবার, পিং- নকিম সরদার, লাউতাড়াকে ২০,০০০টাকা, বিশ্বাস ব্রিকস, তহিদুল ইসলাম, পিং-আ. সাত্তার, টেংরা কে ৫০,০০০টাকা, বাবু, পিং- হাসেম আলী, পানবুড়ীকে ৫০০টাকা, রিফা ব্রিকস, মো. আ. জব্বার, পিং- মৃত আ.করিম বিশ্বাস, বড়বাড়ীয়াকে ৬০,০০০টাকা সর্বমোট ১৮৪০০০ (এক লক্ষ চৌরাশি হাজার) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এসময় সকল ইটভাটাগুলোকে আগামী ০১ মাসের মধ্যে লাইসেন্স করে নেওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়।

সকল অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।