» ঢাকার রাস্তা এখন প্রায় ফাঁকা

প্রকাশিত: ২৫. মার্চ. ২০২০ | বুধবার

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম ।। দেশে মরণব্যাধি করোনাভাইরাসের আক্রান্ত থেকে মানুষকে নিরাপদে রাখতে সরকারের পক্ষ থেকে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা হয়। ছুটি ঘোষণার পর ঢাকা শহরের চিত্র পাল্টে যায়। প্রায় জনশূন্য হয়ে পড়েন রাজধানীর সড়কগুলো।রাজধানীর ব্যস্ততম গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজার এলাকায় আজ বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় তেমনই চিত্র।

এদিকে করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশে লকডাউন হওয়া উচিত বলেও মতামত দিয়েছেন আদালত।

আদালত বলেছেন, ‘করোনা মোকাবিলায় দল-মত নির্বিশেষে এক হয়ে কাজ করতে হবে। তাইওয়ান চীনের পাশের দেশ হওয়া সত্ত্বেও তারা কীভাবে করোনা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছে সেই মডেলটি অনুসরণ করতে হবে। করোনাভাইরাস একটি বৈশ্বিক সমস্যা। যেহেতু এখনও প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি তাই এই পরিস্থিতিতে দেশে লকডাউন হওয়া উচিত।’

সারা দেশে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে এক সমপূরক আবেদনের শুনানি শেষে বুধবার (২৫ মার্চ) হাইকোর্টের বিচারপতি আশরাফুল কামাল ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের বেঞ্চ এ পর্যবেক্ষণ দেন। এ পর্যবেক্ষণের পর রিটটি নিষ্পত্তি করে দেন আদালত। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব।

করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা রিটের শুনানিতে হাইকোর্ট বেঞ্চ এ সব কথা বলেছেন বলে জাগো নিউজকে জানান রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব।

এর আগে করোনা পরীক্ষার জন্য বিশেষ ল্যাব স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করেছিলেন তিনি।

আদালতের বরাত দিয়ে এ আইনজীবী বলেন, ‘করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দল-মত নির্বিশেষে এক হয়ে কাজ করতে হবে। চীনের পাশের দেশ হওয়া সত্ত্বেও তাইওয়ান কীভাবে করোনা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছে, সেই মডেলটি অনুসরণ করতে বলেছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশে লকডাউন হওয়া উচিত বলে মনে করেন আদালত।’

উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর দেশে এ ভাইরাসে প্রাণ গেছে ৫ জনের। আক্রান্তদের মধ্যে তিনজন চিকিৎসক সহ স্বাস্থ্যকর্মী বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।

এ ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ২৫ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। আর প্রাণ গেছে ১৮ হাজার ৯৪৪ জনের।