এই মাত্র পাওয়া:

» টিকা নিলেই বিনামূল্যে এক বোতল করে বিয়ার পাবেন প্রাপ্তবয়স্করা

প্রকাশিত: ০৩. জুন. ২০২১ | বৃহস্পতিবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আগামী ৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস। ওই দিনের মধ্যে দেশের ৭০ শতাংশ প্রাপ্ত বয়স্ককে অন্তত পক্ষে করোনা টিকার একটি ডোজ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আর সেই লক্ষ্য পূরণে এবার নতুন চমক দিল বাইডেন প্রশাসন। টিকা নিলেই প্রাপ্তবয়স্করা বিনামূল্যে এক বোতল করে বিয়ার পাবেন।

পুরো জুন মাসকে পদক্ষেপ গ্রহণের মাস বলে ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। চলতি মাসে যত বেশি সংখ্যক মানুষকে সম্ভব টিকা দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছেন তিনি। সাধারণ মানুষের মধ্য থেকে করোনার টিকা নেওয়ার বিষয়ে যে অনিহা রয়েছে, তা দূর করতে ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে শুরু হয়েছে এমন একাধিক লোভনীয় প্রস্তাব।

কোথাও আর্থিক উপহার দেওয়া হচ্ছে, কোথাও দেওয়া হচ্ছে স্পোর্টস টিকিট। আবার কোনও কোনও অফিস কর্মচারিদের বেতনসহ ছুটিও দিচ্ছে।

এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ৬৩ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক কমপক্ষে করোনা টিকার একটি ডোজ নিয়েছেন। ১৩৩ দশমিক ৬ মিলিয়ন মানুষ টিকার দু’টি ডোজ নিয়েছেন। তবে আগের তুলনায় বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক টিকা গ্রহণের হার কমেছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে টিকা সংক্রান্ত অনিহা দূর করতে তাই এবার আকর্ষনীয় এইসব চমক দিতে শুরু করেছে বাইডেন প্রশাসন।

বাইডেন বলেন, ভ্যাকসিন নিন, বিনামূল্যে বিয়ার পাবেন। তিনি বলেন, আমরা মার্কিন জনগণের সহায়তা চাচ্ছি। বাইডেন আরও বলেন, প্রত্যেককে ভ্যাকসিন নিতে হবে। যেন আমরা স্বাধীনতা দিবসে কোভিড থেকে স্বাধীন হওয়ার ঘোষণা দিতে পারি।

যুক্তরাষ্ট্রের ১২টি অঙ্গরাজ্যে ইতোমধ্যেই ৭০ শতাংশের বেশি মানুষ টিকা নিয়েছেন। অন্যান্য অঙ্গরাজ্যগুলোতেও চলতি সপ্তাহে আরও বেশি মানুষ টিকা গ্রহণ করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাইডেন।

এখন পর্যন্ত ২২০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। এর মধ্যে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আর কোনো দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ধারে-কাছেও নেই। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪১ লাখ ৫৪ হাজার ৩০৫। এর মধ্যে মারা গেছে ৬ লাখ ১১ হাজার ২০ জন। ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে ২ কোটি ৭৯ লাখ ৮৬ হাজার ৫১১ জন।

অপরদিকে বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ কোটি ২৪ লাখ ১১ হাজার ৩৯৬। এর মধ্যে মারা গেছে ৩৭ লাখ ৬ হাজার ২৯৯ জন। তবে ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে ১৫ কোটি ৫০ লাখ ৩৯ হাজার ৭১০ জন।

Facebook Pagelike Widget