এই মাত্র পাওয়া:

» চলতি মাসে দাবি না মানলে ১লা এপ্রিল থেকে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির

প্রকাশিত: ০৪. মার্চ. ২০২০ | বুধবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।। মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা জাতীয়করণের ঘোষণার দাবীতে মানববন্ধন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রী মহোদয় বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

বুধবার সকালে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবীতে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মাওঃ হাফেজ কাজী ফয়েজুর রহমান।

আরো উপস্থিত ছিলেন  সংগঠনের মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান, সহ-সভাপতি মাওঃ মোঃ শাহজাহান, এবিএম আব্দুল কুদ্দুস, আবু মুসা ভূইয়া, বশির উল্লাহ আতাহারী, মোঃ সামছুল আলম, মোঃ ইনতাজ বিন হাকিম, মাহমুদুল হাসান, নাসরিন বেগম, আলতাফ হোসেন, হান্নান, আলহাজ্ব রেজাউল করিম, হাজী আনোয়ার হোসেন, আ.ন.ম আনোয়ার হোসেন, মোঃ শওকত আলী, আব্দুর রাজ্জাক, মাহতাব, আব্দুল কাদের, আনোয়ার হোসেন, মফিজ উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম, মোখলেছুর রহমান, ওবায়েদুল হক, মশিউর রহমান, আব্দুল মালেক, সরদার কামাল, আব্দুল হাকিম, মতিয়ার রহমান, নূরে আলম পন্ডিত, ওমর ফারুক, আমিরুল ইসলাম, হাফেজ ফরিদ, ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন- ১৯৭৮ অডিনেন্স ১৭(২) ধারা মোতাবেক মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের শর্ত পূরণ সাপেক্ষে রেজিঃ প্রাপ্ত হয়। রেজিষ্ট্রেশন হওয়ার পর থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিধি মোতাবেক কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। ১৯৯৪ইং সনে একই পরিপত্রে রেজিষ্ট্রার বেসরকারী প্রাইমারী ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে বিগত সরকারের সময়ে ধাপে ধাপে বেতন বৃদ্ধি হতে হতে ২০১৩ সনে ৯ জানুয়ারী বর্তমান মহাজোট সরকার ২৬১৯৩টি বেসরকারী প্রাইমারী স্কুল জাতীয়করণ করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় সকাল ০৯ থেকে বিকাল ০৪টা পর্যন্ত সরকারি একই সিলেবাসে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় ইবতেদায়ী ৫ম শ্রেণী শিক্ষার্থী সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ন্যায় সরকারের সকল কাজে অংশগ্রহণ করে। অথচ মাস শেষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ ২২-৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন পায়। কিন্তু ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকগণ তেমন কোন বেতন ভাতা পায় না তবুও তারা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ন্যায় শিক্ষকতা চালিয়ে যাচ্ছে। মহাসচিব আরো বলেন- ২০১৮ সালে ১লা জানুয়ারী থেকে ১৬ জানুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষক সমিতি অবস্থান ধর্মঘট ও অনশন চলাকালীন সময় সরকারের নির্দেশে সচিব মহোদয় আন্দোলন স্থলে এসে শিক্ষকদের দাবী মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু আজো তা বাস্তবায়ন হয়নি। ১৫১৯টি ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকগণ সর্বসাকুল্যে প্রধান শিক্ষক ২৫০০টাকা, সহকারী শিক্ষক ২৩০০ টাকা ভাতা পায় বাকি রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত মাদরাসাগুলোর শিক্ষকগণ ৩৪ বছর যাবৎ বেতন ভাতা হতে বঞ্চিত। যা এই দ্রব্যমূল্যের বাজারে অমানবিক, শিক্ষকদের অবমাননা ছাড়া কিছুই না।

মুজিব বর্ষে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার দাবী সমূহঃ
১। প্রাইমারীর ন্যায় সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে মহাসমাবেশের মাধ্যমে জাতীয়করণের ঘোষণা।
২। কোড বিহীন মাদরাসাগুলো বোর্ড কর্তৃক কোড নম্বরে অন্তর্ভূক্ত করণ।
৩। স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করে আলিম শিক্ষক ১ (এক) জনের পরিবর্তে এইচএসসি পাশ ১ (এক) জন অন্তর্ভূক্ত করণ।
৪। প্রাইমারীর ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসায় অফিস সহায়ক নিয়োগ।
৫। প্রাইমারীর ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদেরকে পিটিআই ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করণ।
৬। প্রাইমারীর ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসায় আসবাবপত্রসহ ভবন নির্মাণ।
৭। প্রাইমারীর ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার স্থায়ী রেজিষ্ট্রেশনের ব্যবস্থা করণ।

উপরোক্ত দাবী সমূহ প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক মুজিব বর্ষে ঘোষণা না দিলে আগামী ০১লা এপ্রিল ২০২০ইং তারিখ থেকে সকল শিক্ষকদের নিয়ে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচীর ঘোষণা দেন সংগঠনের মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান।

 

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৪ বার

[hupso]
Facebook Pagelike Widget