এই মাত্র পাওয়া:

» গ্রাহকের টাকা নিয়ে এবার লাপাত্তা অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি ২৪ টিকেট ডটকম

প্রকাশিত: ১০. জুন. ২০২১ | বৃহস্পতিবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।
গ্রাহকের টাকা নিয়ে এবার লাপাত্তা হলো অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি (ওটিএ) ‘২৪ টিকেট ডটকম’। এর আগে পি কে হালদারের ‘হাল ট্রাভেল সার্ভিস’ (হাল ট্রিপ নামে পরিচিত) গ্রাহকের টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়। ফলে সম্ভাবনা থাকলেও প্রতারণার কারণে বিশ্বাসযোগ্যতা হারাচ্ছে অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সির ব্যবসা।

ইতোমধ্যে কাফরুল থানায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। কমপক্ষে ২০ কোটি টাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি পালিয়েছে বলে অভিযোগ এজেন্সিগুলোর। ২৪ টিকেট ডটকম যাত্রা শুরু পর থেকেই গ্রাহক টানতে অস্বাভাবিক রকমের মূল্য ছাড় দিয়ে অফার দেওয়া শুরু করে। স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবসসহ নানা উৎসবকে কেন্দ্র করে তারা বিশেষ অফার ও বিনামূল্যে টিকিট দেয়। এয়ারলাইন্স থেকে ৭ শতাংশ হারে কমিশনে পেলেও এজেন্সিগুলোকে কাছে টানতে তাদের কমিশন দেয় ১২ শতাংশ পর্যন্ত। বাড়তি লাভের আশায় অনেক ট্রাভেল এজেন্সি যুক্ত হয় এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে।

ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর অভিযোগ, এপ্রিলের মাঝামাঝি সময় হুট করে বন্ধ করে দেওয়া হয় প্রতিষ্ঠানটির ফোন নম্বরগুলো। শঙ্কায় অনেকে মহাখালী ডিওএইচএস-এ গিয়ে প্রতিষ্ঠানটি অফিসে তালা দেওয়া দেখতে পান। এক পর্যায়ে অনলাইনে টিকিট বিক্রিও বন্ধ করে দেয় প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিষ্ঠানটির মালিকের ফোন নম্বর বন্ধ পেয়ে বাধ্য হয়ে অনেকেই কাফরুল থানায় জিডি ও মামলা করেন। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রাজ্জাকের গ্রামের বাড়িতে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

কাফরুল থানায় কমপক্ষে ২০ জন ভুক্তভোগী প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে জিডি করেছেন। ২১ মে আইকন ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের সত্ত্বাধিকারী মো. ইব্রাহিম একটি জিডি করেন। মো. ইব্রাহিম বলেন, ‘এপ্রিলে প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে তাদের অফিসে গিয়ে দেখি তালা দেওয়া। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রাজ্জাকের ঢাকা ও গ্রামের বাড়িতে গিয়েও তাকে পাইনি। তাই বাধ্য হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আমি তাদের কাছে ১ লাখ টাকা পাবো।’

২০১৯ সালের মে মাসে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে অনলাইন টিকেটিং এজেন্সি ২৪ টিকেট ডটকম (www.24tkt.com)। রাজধানীর মহাখালী ডিওএইসএসে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এএইচএম শফিকুজ্জামান। তখন প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিলো, ২৪ টিকেট ডটকম ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বিডি টুরিস্টের সহযোগী প্রতিষ্ঠান। বিডি টুরিস্টের একক মালিকায় রয়েছেন মো. আব্দুর রাজ্জাক। প্রতিষ্ঠানটির মালিকানায় রয়েছেন পাঁচজন। তারা হলেন- নাসরিন সুলতানা, মো. আব্দুর রাজ্জাক, আসাদুল ইসলাম, প্রদ্যোতবরণ চৌধুরী, মিজানুর রহমান। এ প্রতিষ্ঠানের মূল উদ্যোক্তা মো. আব্দুর রাজ্জাক যিনি ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদে আছেন। তার বোন নাসরিন সুলতানা আছেন চেয়ারম্যান পদে। তার বন্ধু আসাদুল ইসলামও রয়েছেন পরিচালক (ফিন্যান্স) পদে। বাকি দুজন বিনিয়োগকারী পরিচালক পদে রয়েছেন।

প্রতিষ্ঠানটির ম্যামোরেন্ডামে বলা আছে, নাসরিন সুলতানার শেয়ার ১৫০টি, আব্দুর রাজ্জাকের ১৫০০টি, আসাদুল ইসলামের ১৩৫০টি, প্রদ্যোতবরণ চৌধুরীর ১০০০টি, মিজানুর রহমানের ১০০০টি। অথোরাইজ শেয়ার ক্যাপিটাল ২০ লাখ টাকা, যা ২০ হাজার শেয়ারে বিভাজিত হবে। প্রতি শেয়ারের মূল্য ১০০ টাকা। প্রতিষ্ঠানটিতে নাসরিন সুলতানার ৩ শতাংশ, আব্দুর রাজ্জাকের ৩০ শতাংশ, আসাদুল ইসলামের ২৭ শতাংশ, প্রদ্যোতবরণ চৌধুরীর ২০ শতাংশ এবং মিজানুর ২০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির দুই পরিচালক প্রদ্যোতবরণ চৌধুরী এবং মিজানুর রহমান কাফরুল থানায় জিডি করেছেন। প্রদ্যোতবরণ চৌধুরী প্রতিষ্ঠানটির সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তবে তিনি ডিসেম্বরে অব্যাহতি দিয়ে দুবাই চলে গেছেন। মিজানুর রহমান বিনিয়োগকারী হিসেবে থাকলেও কোনো পদে ছিলেন না। তিনি গত ১৯ মে কাফরুল থানায় জিডি করেন। জিডিতে তিনি দাবি করেন, প্রতিষ্ঠানের মালিকানায় থাকলেও তিনি পরিচালনায় যুক্ত ছিলেন না।

অন্যদিক দুবাই থাকা প্রদ্যোতবরণ চৌধুরীর বাবা পিয়ুষ কান্তি চৌধুরী ছেলের পক্ষে সিলেটে কোতোয়ালি থানায় জিডি করেন। ২২ মে করা জিডিতে বলা হয়, আমার ছেলে বর্তমানে দুবাইতে আছে। লকডাউনের কারণে দেশে আসতে পারছে না। নিজেদের নিরাপত্তার জন্য তারা এ জিডি করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়। এ বিষয়ে আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তার বোন নাসরিন সুলতানার ফোন নম্বরও বন্ধ পাওয়া যায়।

অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশ (আটাব) সভাপতি মনছুর আহমেদ কালাম বলেন, আগেও আমরা অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সির বিষয়ে সতর্ক করেছি। প্রায়ই প্রতারণার অভিযোগ আসছে। হালট্রিপ বিপুল অংকের অর্থ হাতিয়েছে, এখন আবার ২৪ টিকেট ডটকম নামে আরেকটি ট্রাভেল এজেন্সির নামে এমন অভিযোগ এসেছে। এ বিষয়ে সরকারের আরও বেশি নজর দেওয়া উচিৎ।

এ প্রসঙ্গে কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিমুজ্জামান জানান, অনলাইন টিকেটিং এজেন্সি ২৪ টিকেট ডটকমের বিরুদ্ধে অনেকে প্রতারণার অভিযোগে কাফরুল থানায় জিডি করেছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Facebook Pagelike Widget