» গাইবান্ধা-৩ উপ-নির্বাচনে করোনা আতংকের মধ্যেও ভোটগ্রহণ চলছে শান্তিপূর্ণভাবে

প্রকাশিত: ২১. মার্চ. ২০২০ | শনিবার

সঞ্জয় সাহা,জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ
গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্লাপুর) শুন্য আসনে করোনা আতংকের মধ্যেও সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে চলছে ভোটগ্রহন। সকাল ৯টায়় নির্ধারিত সময়ে সকল ভোটকেন্দ্রে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। সকাল ৯টা ৩০ মিনিটের পর থেকে ভোটার উপস্থিতি বৃদ্ধি পেতে থাকে। প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের জন্য রয়েছে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা। ভোটাররা ভোট প্রদান শেষে হান্ডওয়াস ও সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে বাড়ি ফিরছেন।
সকালে পলাশবাড়ী টাউন হলে প্রথম ভোট প্রদান করেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এ্যাড:উম্মে কুলসুম স্মৃতি। সাদুল্লাপুর উপজেলার সাদুল্লাপুর বহুমুখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়় ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রদানের পর ভোটার রিতা রানী সাহা (৪৩) জানান, ‘খুব সহজেই মার্কা খুঁজে ভোট দেওয়া গেছে। পছন্দমতো প্রার্থী বাছাই করে পছন্দের মার্কায়় ভোট প্রদান করেছি’।
একই কেন্দ্রে ভোট প্রদানের পর মো. মোজাম্মেল হক (৭৫) নামে আরেক ভোটার জানান, প্রার্থীদের প্রতীক চিনতে কোন সমস্যা হয়়নি। সুন্দর পরিবেশ ও স্বাধীনভাবে ভোট প্রদান করেছি। করোনার কারণে ভোটের আগে ও পরে সাবান দিয়ে হাত ধুয়েছি ’।
এদিকে, এ আসনের ১শ৩২টি ভোট কেন্দ্রে নির্ধারিত সময়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে চলছে ভোটগ্রহণ।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান জানান, পলাশবাড়ী ও সাদুল্লাপুর উপজেলা নিয়ে গাইবান্ধা-৩ সংসদীয় আসনে একটি পৌরসভা ও ১৯টি ইউনিয়়নে মোট ভোটার ৪ লাখ ১১ হাজার ২শ ১১ জন। ১শ৩২টি ভোটকেন্দ্রে ৭শ৮৬টি ভোট কক্ষে ভোটাররা তাদের ভোটারধিকার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রয়োগ করছেন। সংসদীয়় এই আসনে ১শ৩২জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৭শ৮৬ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১হাজার ৫শ ৭২জন পোলিং অফিসার ভোট গ্রহণের দায়িত্বে রয়েছেন।
এ আসনের উপ-নির্বাচনে রয়েনে ৪ জন বৈধ প্রার্থী। এরমধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী এ্যাড. উম্মে কুলছুম স্মৃতি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মইনুল হাসান সাদিক, জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল প্রতিকের প্রার্থী মইনুর রাব্বী চৌধুরী রোমান। ভোটের মাঠে মোট ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করলেও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মনোনীত মশাল প্রতিকের প্রার্থী এসএম খাদেমুল ইসলাম খুদি নৌকার প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়ে ভোটের মাঠ থেকে সরে দাড়ানোর ফলে এ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটযুদ্ধে মাঠে রইলেন ৩ জন প্রার্থী।
অন্যদিকে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো: আব্দুল মতিন ও জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম।
গাইবান্ধা “জেলা প্রশাসক মো: আব্দুল মতিন” গাইবান্ধা প্রতিদিনকে জানান-সকালে আমি ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। ভোট ভোট সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে হচ্ছে। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ভোট কেন্দ্রগুলোতে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যবস্থা করা হয়েছে।
গাইবান্ধা “পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম” জানান, সুষ্ঠভাবে ভোট গ্রহনের জন্য প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে একজন সহকারী পরিদর্শকসহ ৫ জন পুলিশ ও ১২ জন আনসার দায়িত্ব¡ পালন করছেন। এছাড়া দুই উপজেলায় ১০ প্লাটুন বর্ডার গার্ড ও প্রয়োজনীয় সংখ্যক র‌্যাব সদস্য এর মোবাইল টিম দায়িত্ব¡ পালন করছে। তিনি আরও জানান, প্রতিটি ইউনিয়়নে একটি মোবাইল টিম ও একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স রয়েছে।