এই মাত্র পাওয়া:

» গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে মেয়েকে ধর্ষনের অভিযোগে পিতাকে গ্রেফতার করেছে পিবিঅাই পুলিশ: সাংবাদিকদের সাথে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ২৯. জুলাই. ২০২০ | বুধবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সঞ্জয় সাহা, গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার শ্রীকলা গ্রামে মা প্যারালাইসিস হয়ে বিছানায় পড়ে থাকায় নিজ পিতা মোখলেছুর রহমান এর হাতে ধর্ষনের স্বীকার হলেন মেয়ে মিথুন বেগম। এতে করে পিতাকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার রাত্রে পিবিঅাই অফিসে রাত্রে সংবাদ সম্মেলন করেছে গাইবান্ধা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ( পিবিঅাই) এর পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত প্রেস রিলিজ সূত্রে জানা গেছে, গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার শ্রীকলা গ্রামের কিনা মামুদ কিনা ফকির এর ছেলে মোখলেছুর রহমান এর মেয়ে মোছা: মিথুন বেগম (২২) এর সাথে উপজেলার গোপালপুর গ্রামের রজ্জব আলীর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ে হওয়ার পর ঘর সংসার করাকালে মিথুন বেগম একটি সন্তান জন্ম দেয়। এদিকে মিথুন বেগমের স্বামী মো: রজ্জব আলী ঢাকায় কাজ করতে গেলে মোছা: মিথুন বেগম বাবার বাড়িতে যায়। এদিকে ভিকটিম মিথুন বেগমের মা প্যারালাইসিস হয়ে বিছানায় পড়ে থাকায় বাবা মোখলেছুর রহমান প্রায়ই রাতের বেলা মেয়ের শোয়ার ঘরের বিছানায় যেয়ে মেয়ে মিথুনকে বিভিন্নভাবে যৌন উত্তেজন করার পাশাপাশি ফুসলিয়ে ধর্ষন করে। এরপর বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে একাধিকবার ধর্ষন করে। গত ২০১৯ সালের ১৫ই ডিসেম্বর মেয়ের মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে দুপুর বেলা বাড়ির রান্নাঘরের ভিতর ডেকে নিয়ে মাটিতে মেয়েকে শুইয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। পরে এবিষয়ে চলতি সালের ১১ফেব্রুয়ারি সাদুল্লাপুর থানায় একটি মামলা হয়। যার মামলা নং ১৮ ও ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১)। জিরার নং -৩৪/২০২০। মামলা হবার পর গাইবান্ধা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন মামলাটির তদন্তভার গ্রহন করে এসঅাই নিরস্ত্র মো: এমদাদুল হক প্রামাণিককে আই/ও নিয়োগ করার পর পিবিঅাই ডিঅাইজি বনজ কুমার মজুমদার এর তত্তাবধানে ও দিক নির্দেশনায় পিবিঅাই এর গাইবান্ধা পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ তদন্ত তদারকি করে ধর্ষক মোখলেছুর রহমান পলাতক থাকায় তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে গত ১৬ জুলাই ২০২০ ইং তারিখে নরশিংদী জেলার পলাশ থানাধীন ডাঙ্গা কাজিরচর এলাকা হতে গ্রেফতার করে ও ধর্ষক বিষয়টি স্বীকার করে। কু প্রবৃত্তির তাড়নায় উক্ত মোখলেছুর নিজের মেয়েকে ধর্ষন করার কথা স্বীকার করায় ফৌ:কা: বি: ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী প্রদান করেছে। অন্যদিকে, গাইবান্ধার বালুয়ায় রিপা বেগমকে গনধর্ষনের অভিযোগে মামলা গ্রহনের দিনেই ধর্ষক শাহআলম কে বালুয়ার তার নিজের বাসা থেকে গ্রেফতার করেছে পিবিঅাই পুলিশ। সংবাদ সম্মেলনে জানা যায়, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বালুয়ার শহিদুল ইসলাম ওরফে সদু মেম্বার এর পুত্র নুরুন্নবী ৩৫ এর সাথে দিনাজপুর জেলার ঘোরাঘাট থানার হঠাৎপাড়ার মৃত নুরুজ্জামান এর মেয়ে মোছা: রিপা বেগম এর পরিচয় থাকায় চলতি সালের ২৫ জুলাই ইং তারিখ সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে শাহ আলম এর সাথে দেখা করতে আসে রিপা বেগম। সেখান থেকে শাহ আলম ও নুরুন্নবীসহ অজ্ঞাতনামা ৭থেকে ৮জন রিপা কে একটি বাড়িতে রাখে। পরে সদু মেম্বার এর পুত্র শাহ আলম ও হায়দার আলীর পুত্র নুরন্নবী সহ ৭ থেকে ৮জন চলতি সালের গত ২৫ জুলাই রাত ১১টা থেকে ২৬ জুলাই রাত ৩টা অবধি রিপা বেগমকে পালাক্রমে ধর্ষন করে। এতে রিপা বেগম বাদী হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় মামলা করলে পিবিঅাই পুলিশের ডিঅাইজি বনজ কুমার মজুমদার এর তত্তাবধানে ও দিক নির্দেশনায় পিবিঅাই এর গাইবান্ধা পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ তদন্ত তদারকি করে মামলার এজাহার সুত্রে ২ নং আসামি নুরুন্নবী মিয়াকে গত ২৭ জুলাই ২০২০ ইং তারিখে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করলে সে বিষয়টি স্বীকার করে। পরে ১ নং আসামী শাহ আলমকে ২৮ জুলাই ২০ ইং তারিখে বালুয়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই পুলিশ। তাকে আদালতে নেয়া হবে। এসময় পিবিআই এর সহকারি পুলিশ সুপার আব্দুল হাই সরকার, পুলিশ সদস্য সহ সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৬ বার

[hupso]
Facebook Pagelike Widget