এই মাত্র পাওয়া:

» গণতন্ত্রের নামে সরকার ও সরকার বিরোধীরা জাতীয় জীবনে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে- আমীর, ইসলামী সমাজ

প্রকাশিত: ২০. নভেম্বর. ২০২২ | রবিবার

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।
ইসলামী সমাজের আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেছেন, মানব রচিত ব্যবস্থা গণতন্ত্র মেনে চলার কারণে জাতির মানুষ বিভিন্ন দল ও উপদলে বিভক্ত হয়ে সংঘাত ও সংঘর্ষের পথে চলছে। সরকার এবং সরকার বিরোধীদের মধ্যে চলমান রাজনৈতিক সংকটের কারণে জাতীয় জীবনে চরম অশান্তি ও অস্থিরতা বিরাজ করছে। তিনি বলেন, সংঘাত ও সংঘর্ষের কারণে জাতীয় জীবনে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় এবং চরম দুর্ভিক্ষ দেখা দিতে পারে। ইতিমধ্যে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও তেল সংকট দেখা দিয়েছে এবং নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতিতে সাধারণ মানুষের জীবনে সংকট দেখা দিয়েছে। মানব রচিত ব্যবস্থা মেনে চলার কারণে তাদের আখিরাতের জীবন মহাক্ষতির সম্মুখীন। গণতন্ত্রের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরকার এবং সরকার বিরোধী উভয় পক্ষের মধ্যে যে কোন মূহুর্তে ক্ষমতা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভয়াবহ সংঘাত ও সংঘর্ষ শুরু হয়ে যেতে পারে। যার কারণে জাতীয় জীবনে চরম নৈরাজ্য ও মানবিক বিপর্যয় দেখা দিতে পারে। তিনি বলেন, গণতন্ত্রের নামে সরকার ও সরকার বিরোধীরা জাতীয় জীবনে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে।
আজ ১৯ নভেম্বর, ২০২২; (শনিবার) বিকাল ৩ ঘটিকায় ইসলামী সমাজের উদ্যোগে “দেশে চলমান নাজুক পরিস্থিতিতে সকল প্রকার ক্ষতি থেকে রক্ষা পেয়ে দল-মত নির্বিশেষে সকল মানুষ মিলেমিশে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করার লক্ষ্যে করণীয়” বিষয়ে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা জনাব মুহাম্মাদ ইয়াছিন এর স ালনায় রাজধানী ঢাকা’র বাংলাদেশ ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন হলরুমে অনুষ্ঠিত “শান্তি সমাবেশে” ইসলামী সমাজের আমীর হজরত সৈয়দ হুমায়ূন কবীর বলেন, দূর্নীতি, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য জাতির মানুষের জীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি করছে এবং ধর্মের নামেও সন্ত্রাস, উগ্রতা ও জঙ্গিবাদী অপতৎপরতার বিস্তার ঘটছে। তিনি আরও বলেন, মানব রচিত ব্যবস্থা গণতন্ত্র দিয়ে রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনা করার কারণেই দীর্ঘ ৫১ বছরেও দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হয়নি, বরং চরম অশান্তি বিরাজ করছে, রাজনীতির নামে মানুষে মানুষে সংঘাত ও সংঘর্ষ চলছে, সংঘাত ও সংঘর্ষের মাত্রা ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। হিংষা-প্রতিহিংষা এবং মানবতা বিরোধী অপতৎপরতা ক্রমেই বেড়ে চলছে, দূর্বলের উপর শক্তিমানের শোষন ও জুলুম চলছে, ক্ষমতাসীনদের লুট-পাট ও অরাজকতা সাধারণ মানুষের জীবনকে অতিষ্ঠ করছে। তিনি বলেন, সকল প্রকার ক্ষতি থেকে রক্ষা পেয়ে জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র ও দল-মত নির্বিশেষে সকল মানুষ মিলেমিশে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করতে হলে গণতন্ত্রের নামে দেশে চলমান সংঘাতময় রাজনীতির মূলোৎপাটন করতে হবে এবং সকল ধর্মের লোকদের জন্য যার যার ধর্ম পালনের সুযোগ রেখে সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন এবং পরিচালনায় সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ প্রদত্ত ব্যবস্থা ইসলাম আল্লাহর রাসূল হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রদর্শিত পদ্ধতিতে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এ লক্ষ্যেই “ইসলামী সমাজ” সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলাম প্রতিষ্ঠার ঈমানী, নৈতিক ও মানবিক দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। সংগঠনের আমীর বলেন, ‘ইসলামী সমাজ’ সকলের জন্য নিরাপদ আশ্রয়স্থল। তিনি দল, মত নির্বিশেষে সকলকে ইসলামী সমাজে শামিল হয়ে ইসলাম প্রতিষ্ঠার ঈমানী, নৈতিক ও মানবকি দায়িত্ব পালনের আহবান জানান।
শান্তি সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- ইসলামী সমাজ এর কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল, মোঃ নুরুদ্দিন, মোহাম্মাদ আলী জিন্নাহ, আজমুল হক, সোহেল আহমেদ, আবু জাফর মোহাম্মাদ সালেহ্ এবং ইসলামী সমাজের সদস্য, সোহাগ আহমেদ ও হাবিবুর রহমান।