এই মাত্র পাওয়া:

» করোনা সংকটে কুমিল্লায় মানবতার ফেরিওয়ালা টিম টিপু’র গল্প    

প্রকাশিত: ০৬. জুন. ২০২০ | শনিবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
দিদারুল আলম দিদার: 
কুমিল্লায় মানবতার ফেরিওয়ালা ইউসুফ মোল্লা টিপু’র “টিম টিপু” করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত অষ্টম মরদেহ আজ দাফন সম্পন্ন করেছেন।
কুমিল্লা মহানগরে  ‘করোনাযোদ্ধা ও মানবতার ফেরিওয়ালা জনদরদী  ইউসুফ মোল্লা টিপু’ আজ তার ফেইসবুক আইডিতে লিখেছেন :
অষ্টম দাফন”
নগরীর ৬নং ওয়ার্ডে শুভপুর নিবাসী বিশিষ্ট স্বর্ণ ব্যবসায়ী আলহাজ্ব আবুল কাশেম সাহেব করোনা উপসর্গ নিয়ে ইন্তেকাল করেন, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন, উনার দাফনের কাজ সম্পন্ন করলাম, আলহামদুলিল্লাহ”
মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।”
করোনাভাইরাস (কোভিড–১৯) চীনের উহান থেকে মহামারি আকারে    ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বময়। এ মহামারি ছড়িয়ে পড়েছে বাংলাদেশেও।
এ মহামারি বিশ্বের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা পাল্টে দিয়েছে।  চলমান এ মহামারি মোকোবেলায় বিশ্বে যোগাযোগ ব্যবস্থা, অফিস-আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিল্প ও বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠান একে একে বন্ধ রাখতে হয়। করতে হয় লকডাউন।
ফলে অকল্পনীয় সমস্যা ও সংকটের  মুখোমুখি পড়ে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। মানবতার কল্যাণে বিবেকের তাড়নায় করোনার কারণে পরিস্থিতির শিকার মানুষ এবং কুমিল্লা সিটিকে জীবানু মুক্ত করতে পাশে দাঁড়ান ইউসুফ মোল্লা টিপু ও তার সহকর্মীদের সমন্বয়ে গড়া স্বেচ্ছাসেবী দল ‘টিম টিপু’ ও তার সংগঠন ‘বিবেক’।
দেশে করোনা সংক্রমণে মৃতদের দাফনে স্বাস্থ্যবিধি মানা এবং এক ধরনের ভীতি কাজ করায় টিপু ঘোষনা দেন কুমিল্লায় করোনায় মৃতদের দাফনে তিনি ও তার টিম সব ধরনের দায়িত্ব নিবেন। সে অনুযায়ী কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃতদের জানাযা দাফন করছেন টিপু ও তার টিম। সিটিতে করোনায় ৮ মৃতের সবকটি দাফন ‘টিম টিপু’ সম্পন্ন করেছেন। মৃতদের মধ্যে সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা, বাখরাবাদ গ্যাসের প্রকৌশলী, ব্যবসায়ী রয়েছেন।
কুমিল্লায় মহানগরে করোনায় মৃত সংবাদ পেলেই দাফনে ছুটে যান ‘টিম টিপু’।  করোনার সময়ে এই তরুণের  কার্যক্রমের প্রশংসা দেশময় ছড়িয়ে পড়েছে। সময়ের সাহসী এ বীরসন্তান করোনাযোদ্ধা বিভিন্ন গণমাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি  উপাধি পান ‘মানবতার ফেরিওয়ালা’।
নগরবাসীকে টিপু জানান, করোনায় আক্রান্ত মৃতদের লাশ দাফন ও সৎকার, আক্রান্তদের সাহস যোগানো ও উজ্জীবিত রাখা এবং অসহায় শ্রেণি পেশার মানুষদের সকল মানবিক সহায়তা চালিয়ে যাবেন তার টিম।
করোনা সংকটের শুরুতেই নগরকে জীবাণু মুক্ত রাখতে কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগে ক্লোরিনযুক্ত পানি বিভিন্ন বাড়িঘর রাস্তাঘাটে ছিটিনোর কার্যক্রম শুরু করে কুমিল্লায় সিটিতে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন ইউসুফ মোল্লা টিপু ও তার ‘টিম টিপু’।
নিজ উদ্যোগে এবং  শুভাকাঙ্ক্ষীদের সহায়তায় নগরীর অসহায় ও সমস্যাগ্রস্ত বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের পাশে রয়েছেন ইউসুফ মোল্লা টিপু।
করোনা মহামারিতে যখন থমকে গেছে অনেক কিছুই, সেই মুহূর্তে এগিয়ে আসেন টিপু । এরই ধারাবাহিকভাবে সমস্যাগ্রস্থদের ত্রাণসামগ্রী বিতরণসহ রমজান মাসের খাদ্যসামগ্রীও উপহার হিসেবে দিয়েছেন টিম টিপু, যা প্রশংসা কুড়িয়েছে সর্বমহলে।
পরিবার নিয়ে যখন অধিকাংশরাই  নিরাপদে বাসায় বন্দী আছেন, এ সময় করোনাভাইরাসের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ত্রাণ উপহার, করোনায় আক্রান্ত এবং  সমস্যাক্রান্তের বাসায় কীভাবে খাবারের জিনিসপত্র পৌঁছানো যায়, এ ভাবনায় দিন কেটে যায় তাঁর।
এমন অনেক দিন যাচ্ছে , ‘টিম টিপু’  সকালে বের হয়েছেন, বাসায় ফিরছেন রাতে। কখনো কখনো রাতেও ছুটে যান সমস্যাগ্রস্তদের পাশে।
পরিবারের সদস্যদের রেখে মানবতার জন্য মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় আনন্দ এবং তৃপ্তি খুঁজে পান ইউসুফ মোল্লা টিপু। ব্যক্তিজীবনে একজন সফল সংগঠক ইউসুফ মোল্লা টিপু। সাবেক এ ছাত্রনেতা এখন কুমিল্লা মহানগর যুবদলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন।
টিপু বলেন, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত আর্তমানবতার সেবায় যেন নিজেকে নিয়োজিত রাখতে পারি, সেটাই আমার প্রত্যাশা।’ তিনি আরও বলেন, ‘যত দিন মহান রাব্বুল আলামিন আমাকে সুস্থ-সবল রাখবে, তত দিন মানুষের কল্যাণে আমার পথচলা বহমান থাকবে।’
বিশ্বব্যাপি এ মহামারি সংকটে কুমিল্লায় মানবতার অনন্য নিদর্শন ইউসুফ মোল্লা টিপুকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ষ্ট্যাটাস দিয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা ও আওয়ামী লীগের সাবেক সহসম্পাদক এডভোকেট আনিসুর রহমান। তিনি স্ট্যাটাসে লিখেছেন, “আমি টিপু এবং টিপুর  সহযোগী সবাইকে দোয়া করছি, তোমরা সুস্থ থেকো, ভালো থেকো, মহান আল্লাহ্‌ তোমাদের সাহায্য করুক -“তোমাদের এই ঋণ–কোন দিন শোধ হবেনা।” ইউসুফ মোল্লা টিপু, তোমাকে অভিনন্দন জানাচ্ছি হৃদয়ের গভীরতম স্থান থেকে !! তিনি লিখেন,  ব্যক্তিগত ভাবে আমি কখনো যাকে নিয়ে ভাবিনী যে, এই ছেলেটি মানুষের প্রচন্ড দুর্দিনে এভাবে পাশে দাড়াবে। সেই ইউসুফ মোল্লা টিপু এবং তার সহযোগী ভাগীনা রনি সহ অন্যরা জীবনের ঝুকি নিয়ে মানুষের কাজ করছেন।কুমিল্লার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে, করোনা আক্রান্ত মৃত মানুষদের প্রতিদিনই দাফন করে যাচ্ছে টিপু এবং সহযোগীরা ! এটি শুধু মানবিকতাই নয়, প্রচন্ড সাহসিকতাও।
উল্লেখ্য- দেশকে সংক্রমণ জনিত ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা, সাধারণ ছুটি, মানুষকে ঘরে থাকতে রাষ্ট্রের আহ্বান, লকডাউনজনিত কারণে নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা পড়ে যায় আর্থিক সংকটে।টিপু ও তার সংগঠন ‘বিবেক’ অসহায় মানুষ, করোনা সংক্রমণের শিকার মানুষের পাশে নিরলসভাবে বিভিন্ন সহযোগিতা নিয়ে কুমিল্লায়  অসহায়দের পাশে ছুটছেন। সংকটের শুরুতেই প্রশাসন, সিটি কর্পোরেশনের পাশাপাশি শহরকে জীবানুমুক্ত রাখতে জীবাণুনাশক ঔষধ স্প্রেসহ সচেতনায় প্রচার করেছেন টিম ‘টিপু’।
করোনা সংকটের শুরুতেই ঘোষণা দেন করোনায় মৃত্যুবরণকারীকে দাফনে টিপু ও তার সংগঠন সহকর্মীরা প্রস্তত রয়েছেন। সে অনুযায়ী সিটি এলাকায় করোনায় মৃতদের প্রচন্ড সাহসীকতা ও মানবিকতায় জানাযা ও দাফন করে যাচ্ছেন টিপু ও তার সহকর্মীগন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সাহসী করোনা যোদ্ধার নিরলস মানবিক তৎপরতা দেশ বিদেশে লাখ মানুষের প্রসংশা কুড়িয়েছেন।
বিভিন্ন গনমাধ্যম ও সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাজারো মানুষ তাকে ‘স্যালুট’ ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন।
এ ক্রান্তিকালে অনেক সামর্থ্যবান স্বচ্ছল মানুষ, তথাকথিত রাজনীতিবিদ ও সমাজকর্মীকে দেখা যাচ্ছে হাত গুটিয়ে বসে আছে। সেখানে টিপুরা এগিয়ে এসেছেন জীবন ও সম্পদের পরোয়া না করে।
স্যালুট ইউসুফ মোল্লা টিপু ও টিম ‘টিপু’। সব রাজনৈতিক পরিচয়কে ছাপিয়ে ইউসুফ মোল্লা টিপু এখন “মানবতার ফেরিওয়ালা ও সত্যিকারের জনদরদী।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭৫১ বার

[hupso]
Facebook Pagelike Widget