» করোনাভাইরাস জনিত পরিস্থিতি : ব্যক্তিগত লোনের জন্য সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবীদের আবেদন আহ্বান

প্রকাশিত: ১৬. এপ্রিল. ২০২০ | বৃহস্পতিবার

 

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম     :

করোনা ভাইরাসজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে পেশায় ক্ষতিগ্রস্ত আইনজীবীদের কাছ থেকে ব্যক্তিগত লোনের আবেদন নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট বার।

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির (সুপ্রিমকোর্ট বার) কার্যনির্বাহী কমিটির এক সভায় আজ এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সুপ্রিমকোর্ট বার এর সভাপতি সিনিয়র এডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিনের সভাপতিত্বে আজ এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সুপ্রিমকোর্ট বার সম্পাদক ব্যারিষ্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল গণমাধ্যমকে আজ এ কথা জানান। তিনি বলেন, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির অফিস থেকে প্রিন্টেড আবেদন সংগ্রহ করে আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিদিন বেলা ১১ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত আবেদন জমা দিতে হবে। অথবা সুপ্রিমকোর্ট বার এর ওয়েবসাইট থেকে আবেদন ডাউনলোড করে তা মেইল করেও জমা দিতে পারবেন আইনজীবীরা। তিনি বলেন, সুপ্রিমকোর্টের ওয়েবসাইট হলো-www.scba.org.bd মেইল হলো-scba.bd@gmail.com। তিনি বলেন, সুপ্রিমকোর্ট বার এর ২০২০- ২০২১ বর্ষের জন্য নির্বাচিত নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি গত ১৩ এপ্রিল দায়িত্ব গ্রহণ করেন। দায়িত্ব গ্রহণের দ্বিতীয় দিনে আজ কমিটির প্রথম সভায় আইনজীবীদের কল্যানে এ গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
ব্যারিষ্টার কাজল জানান, করোনাভাইরাস জনিত উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সদস্যদের জন্য সুদমুক্ত ঋণ, নবীন আইনজীবীদের প্রাথমিক পর্যায়ে ৫০ লাখ টাকার ফান্ড গঠনসহ ৫ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট বার-এর নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি। তিনি বলেন, এ ফান্ড পর্যায়ক্রমে বৃদ্ধি করা হবে। সুপ্রিমকোর্ট বার এর উন্নয়ন এবং আইনজীবীদের কল্যাণে কমিটি সম্ভব সব কিছুই করবে। ফান্ডগঠন সংক্রান্ত এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি গত ১১ এপ্রিল প্রকাশ করা হয়। এতে বলা হয়, করোনাভাইরাস জনিত কারণে আদালতের অনির্ধারিত বন্ধ এবং দেশ কার্যত লকডাউনে থাকায় পেশাজীবী হিসাবে আমরা এক অনিশ্চয়তা ও অস্বস্তিকর অবস্থায় পতিত হয়েছি। বিশেষ করে পেশায় আমাদের তরুণ বন্ধুদের বিষয়টি উদ্বিগ্ন করেছে বেশি।

 


ব্যারিষ্টার কাজল বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে নতুন কমিটি আইনজীবীদের কল্যাণে সমিতির পক্ষ থেকে কি কি করা যায়, সেটা নিয়ে আলোচনা করেছে। এ বিষয়ে সুপ্রিমকোর্ট বার এর সাবেক নেতৃত্ব, সিনিয়র আইনজীবীসহ নানা পর্যায়ে পরামর্শ করা হয়েছে । তিনি বলেন, দুঃসময়ে আমরা একে অপরের পাশে থাকবো এটা সকলেই প্রত্যাশা করি। আমরা আমাদের কার্যক্রমে শতভাগ সততা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করতে চাই।