» ইসলামের নৈতিকতার আলোকে শ্রমিকের অধিকার

প্রকাশিত: ১৭. জুন. ২০২২ | শুক্রবার

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।
ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ জীবনাদর্শ হিসেবে অন্যান্য সকল দিকের মতো শ্রমজীবী মানুষদের সব সমস্যার সার্বিক ও ন্যায়ানুগ সমাধানের দিকনিদের্শনা প্রদান করেছে। ইসলাম চায় শ্রমিক ও মালিকের সৌহার্দ্যমূলক পারস্পারিক সম্পর্কের ভিত্তিতে এমন এক বিধানের প্রচলন করতে, যেখানে দুর্বল শ্রেণীকে শোষণ-নিপীড়নে পিষ্ট করার জঘন্য প্রবণতা থাকবে না। আমরা সবাই শ্রমিক, আমরা বিভিন্ন ভাবে শ্রমের বিনিময়ে জীবিকা নির্বাহ করে থাকি। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা করেছেন, ‘প্রত্যেকের মর্যাদা তার কাজ অনুযায়ী, এটা এজন্য যে, আল্লাহ প্রত্যেকের কর্মেও পূর্ণ প্রতিফল দিবেন এবং তাদের প্রতি অবিচার করা হবে না।’ ফলে শ্রমিকের সন্তুষ্টি কর্মে ও উন্নয়নে গতিশীলতা আনয়ন করে। শ্রমিকের অধিকারের ব্যাপারে ইসলাম যতটা গুরুত্ব দিয়েছে পৃথিবীর অন্য কোন ধর্ম বা চিস্তাদর্শে তার নজির খুঁজে পাওয়া যাবেনা। তাইতো রাসূলুল্লাহ (সাঃ) শরীরের ঘাম শুকানোর আগেই শ্রমিকের পারিশ্রমিক দিয়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। বিশ্ব অলী শাহানশাহ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (ক.) ওরস শরীফে আগত নিম্ন বর্ণের লোকদের জিজ্ঞাসা করতেন তারা খেয়েছেন কিনা।

বর্তমানে খোদার পৃথিবীতে আমরা বিভক্ত, পারস্পরিক হানাহানি দ্বন্দ্ব সংঘাত হিংসা-বিদ্বেষ বিদ্রূপতায় অতিষ্ঠ। পৃথিবীতে আমরাই করেছি কলঙ্কিত। এই ধরনের নানামুখী নেতিবাচক আচরণ থেকে মানবসমাজকে মুক্ত রাখার অঙ্গীকার নিয়ে পৃথিবীর মানুষের শাস্তিপূর্ণ সহাবস্থানের আহ্বান হচ্ছে মাইজভাণ্ডারীয়া তরিকা। বিশ্বঅলী শাহানশাহ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (ক.) এর নামে প্রতিষ্ঠিত ত্বরিকা-ই মাইজভাণ্ডারীয়ার আদর্শবাহী প্রতিষ্ঠান শাহানশাহ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (ক.) ট্রাস্ট, সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জনকল্যাণমূলক কাজ করার জন্য নিবেদিত একটি অরাজনৈতিক, অলাভজনক ও মানবতাবাদী ধর্মীয় সংগঠন। এ লক্ষ্যে জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্ট সমাজের অনগ্রসর শ্রেণিকে স্বাবলম্বী করতে বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রমের অংশ হিসাবে দারিদ্র বিমোচন প্রকল্পের মাধ্যমে সমাজের অসহায় মানুষের মাঝে সিএনজি, অটো রিকশা, ভ্যান গাড়ী, কৃষি যন্ত্রপাতি প্রদান করা, দুস্থ মানুষের মধ্যে চিকিৎসা সেবা, মহামারীতে খতিগ্রস্থ দরিদ্র মানুষ কে আর্থিক সহায়তা, বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসায় আর্থিক অনুদান প্রদান, শীত বস্ত্র বিতরন, দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সেলাই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাইত-উল-আসফিয়া মাইজভান্ডারী খানকাহ্ শরিফ আয়োজিত  “ইসলামের নৈতিকতার আলোকে শ্রমিকের অধিকার” বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আলোচনায় প্রধান অথিতি ছিলেন  মোঃ এহছানে এলাহী, সচিব, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়, বাংলাদেশ সরকার, বিশেষ অথিতি  জাফর রাজা চৌধুরী, সাবেক রেজিস্ট্রার অফ কপি রাইট, বাংলাদেশ কপিরাইট অফিস, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়, ঢাকা। মাওলানা আহমেদ রেজা ফারুকী, পেশ ঈমাম, সুপ্রিম কোর্ট মাজার মসজিদ, উপস্থাপক, চ্যানেল আই, ঢাকা ও ভিক্ষু সুনন্দ প্রিয় মহাথের, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ বুদ্দিস্ট ফেডারেশন, ইমরান আহমেদ ভুইয়া, ডেপুটি এটর্নি জেনারেল, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, ঢাকা ও অন্যান্য।

সেমিনারের মূল প্রবন্ধের উপর আলোচনায় অংশগ্রহন করেন  মোঃ এহছানে এলাহী, সচিব, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়, ঢাকা।  জাফর রাজা চৌধুরী, সাবেক রেজিস্ট্রার অফ কপি রাইট, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়, মাওলানা আহমেদ রেজা ফারুকী, পেশ ঈমাম সুপ্রিম কোট মাজার মসজিদ, উপস্থাপক চ্যানেল আই, ঢাকা,। ভিক্ষু সুনন্দ প্রিয় মহাথের, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশন, ইমরান আহমেদ ভুইয়া, ডিপুটি এটর্নি জেনারেল, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, ঢাকা, শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান, সিনিয়র সহকারী সচিব, আইন মন্ত্রনালয়, ঢাকা, আবু সালেহ, সাবেক শিক্ষার্থী, ডিপার্টমেন্ট অব ইসলামিক থিওলজি, আল-মোস্তফা (সা:) আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়, মাশহাদ, ইরান। সভাপতিত্ব করেন  কাজী মুজিবুল ইসলাম, নির্বাহী কর্মকর্তা ও শাখা ব্যবস্থাপক, ইস্কাটন শাখা, ইউসিবিএল, ঢাকা অনুস্টানে দেশের খ্যাতনামা সুফিতাত্তিক, সমাজের বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ, শ্রমজীবী, পেশাজীবী ও ছাত্র শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।