এই মাত্র পাওয়া:

» আমি স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছি : মাহাথির মোহাম্মদ

প্রকাশিত: ২০. মার্চ. ২০২০ | শুক্রবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।    মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। মাহাথির নিজেই বলছেন, আমি স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছি।

গতকাল বৃহস্পতিবার তার এক মুখপাত্র বলেন, মাহাথির বর্তমানে স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। মঙ্গলবার তিনি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) পরীক্ষা করেন। তবে পরীক্ষার ফল প্রকাশে অনিচ্ছার কথা জানান তিনি।

কোয়ারেন্টাইনে থাকার অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, আলহামদুলিল্লাহ, এটা আমার জন্য কঠিন কিছু না। সঙ্কটটির সমাধানে এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাকে অবশ্যই ১৪ দিন এ অবস্থায় থাকতে হবে।

স্থানীয় একটি টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মাহাথির বলেন, আমি এখন বাড়িতে আছি। বাইরে বের হতে পারছি না। কারও সঙ্গে মুসাফাহা করতে পারি না।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক পার্লামেন্ট সদস্যের সংস্পর্শে আসার পর স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে চলে যান তিনি।

এমপি কেলভিন ই লি উয়েনের সঙ্গে ছবি তুলতে দেখা গেছে ৯৫ বছর বয়সী মাহাথিরকে। সারওয়াক জেনারেল হাসপাতালে বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ওই এমপি।

গত মঙ্গলবার এক ফেসবুক পোস্টে নিজের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন উয়েন। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরেক এমপি অ্যান্ড্রু লিং বিউর সংস্পর্শে এসেছিলেন।

কোয়ারেন্টাইনে থাকলে ভাইরাস অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা কম থাকবে বলেও মন্তব্য করেন মাহাথির।

গতকাল বৃহস্পতিবার টুইটারে তিনি বলেন, সব ধরনের পূর্বসতর্কতামূলক পদক্ষেপ নিতে হবে। কোনোভাবেই এটাকে হালকা করে দেখার সুযোগ নেই। এই বৈশ্বিক মহামারি মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। এটা প্লেগের মতো ছড়িয়ে পড়ছে। এটি লাখ লাখ লোকের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা রয়েছে।

এদিকে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী মো. ইব্রাহিম সাবরি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, পুলিশ বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হিমশিম খাচ্ছে, এই পরিস্থিতিতে পুলিশকে সহযোগিতার জন্য আগামী রোববার থেকে মাঠে নামবে সেনাবাহিনী। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং ইতিবাচক সিদ্ধান্ত। বর্তমান কঠিন সময়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ, মানুষের চলাচল পাবলিক ট্রান্সপোর্ট শহর গ্রাম বন্দর সব এলাকায় মানুষের চলাচলের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সেনাবাহিনী ও পুলিশ একযোগে কাজ করবে।

এদিকে প্রয়োজনীয় কাজ ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হওয়ার জন্য রেস্টুরেন্টে বসে কেউ খাবার খেলে তাকে তাৎক্ষণিক এক হাজার জরিমানা অনাদায়ে ছয় মাসের আইন করা হয়েছে এবং মালয়েশিয়া বিভিন্ন টিভি চ্যানেল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক দেখা গেছে, দিনরাত মালয়েশিয়ার পুলিশ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে আবার প্রয়োজনে জরিমানাও করছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩০ জন। এতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩০ জনে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৭ জন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫৪ বার

[hupso]
Facebook Pagelike Widget