এই মাত্র পাওয়া:

» আইসিটি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ ৫০ শতাংশ ও লিঙ্গ সমতা অর্জনের আহবান

প্রকাশিত: ০২. জুলাই. ২০২১ | শুক্রবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জাতির সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম।।
আইসিটি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ ২০৪১ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ করার ঘোষণা এবং লিঙ্গ সমতা অর্জনে বিশ্ব নেতাদের সাহসী নীতিমালা ও সম্মিলিত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম, প্যারিস আয়োজিত ‘লিঙ্গ সমতার জন্য প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবন’ শীর্ষক অ্যাকশন কোয়ালিশন অনুষ্ঠানে ভিডিও বার্তায় বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) এ আহ্বান জানান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,২৫তম বার্ষিকী অনুষ্ঠানে বেইজিং সম্মেলনে আমি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম সেই ধারাবাহিকতায় আজ আবারো শপথ নিতে চাই যে, ২০২৬ সালের মধ্যে টেক স্টার্ট অ্যাপস এবং ই-কমার্স সেক্টরসহ আইসিটি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করে ২৫ শতাংশ করব। আর ২০৪১ সালের মধ্যে তা ৫০ শতাংশে উন্নীত করব। প্রধানমন্ত্রী জানান, সাইবার প্লাটফর্মগুলোতে নারীদের নিরাপত্তা বাড়াতে গত তিন বছরে ৭১ হাজারের বেশি মেয়েকে সাইবার সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে বলে ।

তিনি বলেন, বেইজিংয়ে ১৯৯৫ সালে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বিশ্ব সম্প্রদায় সাহসী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে এই প্রতিশ্রুতির অনেকগুলোই এখনো পূরণ হয়নি। বিশ্বব্যাপী রাজনীতি, অর্থনীতি এবং শ্রমশক্তিতে নারীর যে অংশগ্রহণ সেটা উৎসাহজনক নয়। সংসদ সদস্যদের মধ্যে বর্তমানে মাত্র ২৫ শতাংশ নারী। আর শ্রমশক্তিতে পুরুষের তুলনায় নারীর অংশগ্রহণ এখনো ৩১ শতাংশ কম। এই পরিস্থিতি আমাদের অবশ্যই বদলাতে হবে, এ জন্য সাহসী নীতিমালা তৈরি ও সমন্বিত পদক্ষেপ নিতে হবে। প্রযুক্তি স্টার্টআপ এবং ই-কর্মাসসহ তথ্য প্রযুক্তি সেক্টরে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ।

উল্লেখ্য, ৩০ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত দু’টি ইভেন্ট-জুড়ে চলছে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম বা প্রজন্মের সমতা ফোরামের এই অনুষ্ঠান। এটি মেক্সিকো সিটিতে শুরু হয়েছিল এবং প্যারিসে শেষ হবে।

জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম হলো লিঙ্গ সমতার জন্য একটি বিশ্বব্যাপী আন্দোলন। জাতিসংঘের উইমেনের আহ্বানে এ অনুষ্ঠিতটি মেক্সিকো এবং ফ্রান্স সরকার যৌথভাবে আয়োজন করে।

Facebook Pagelike Widget